ওয়েব ডেভলপমেন্ট

ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইন কি ওয়ার্ডপ্রেসের গতি কমিয়ে দেয়?

will-inactive-plugins-slow-down-wordpress

সম্প্রতি, আমাদের পাঠকদের মধ্যে একজন জানতে চেয়েছেন, আমাদের ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলো ওয়ার্ডপ্রেসকে স্লো বা গতি কমিয়ে দেয় কিনা এবং ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলো মুছে ফেলা উচিত কিনা। বেশিরভাগ ওয়ার্ডপ্রেসে ব্যবহারকারীরা পরীক্ষা করার জন্য প্লাগইনগুলো ইনস্টল করে এবং তারপর ইনঅ্যাক্টিভ করে রাখেন।  আজ এই বিষয়টি নিয়ে আমরা আলোচনা করব।

ওয়ার্ডপ্রেস ডিঅ্যাক্টিভেটেট বা ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইন কি?

ওয়ার্ডপ্রেসের সবচেয়ে বড় সুবিধাটি হল যে আপনি প্লাগইন ব্যবহার করে ওয়েবসাইটকে আরো সুন্দর ও ইউজার ফ্রেন্ডলি করে তুলতে পারেন। আপনি একটি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইন ইনস্টল করার সময়, প্লাগইন ফাইলটি আপনার ওয়েব হোস্টিং সার্ভারে ডাউনলোড হয়ে থাকে।

প্লাগইন ব্যবহার করার জন্য, আপনাকে এটি সক্রিয় বা অ্যাক্টিভ করতে হবে।

তবে আপনি চাইলে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী অন্য যেকোনো সময়েও এটি অ্যাক্টিভ করে নিতে পারবেন। আবার যদি প্লাগইনটি আপনার প্রয়োজন না হয়, তাহলে ডিঅ্যাক্টিভেটেট বা ইনঅ্যাক্টিভও করে দিতে পারেন। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস অ্যাডমিন এরিয়া বা ড্যাশবোর্ডের plugins পেজে আপনার ইনস্টলকৃত প্লাগইনগুলো (অ্যাক্টিভ এবং ডিঅ্যাক্টিভেটেট বা ইনঅ্যাক্টিভ দুটোই) দেখতে পারবেন।

সক্রিয় বা অ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলো নীল রঙে হাইলাইট করা থাকে এবং ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলোর নীচে একটি ডিলিট লিঙ্ক থাকে।

ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইন কি ওয়ার্ডপ্রেসের গতি কমিয়ে দেয়?

না, ইনঅ্যাক্টিভ বা ডিঅ্যাক্টিভেটেট প্লাগইনগুলো ওয়ার্ডপ্রেসের গতি কমিয়ে দেয় না। এটি বুঝতে হলে আমাদেরকে আগে জানতে হবে ওয়ার্ডপ্রেস কিভাবে কাজ করে।

একজন ব্যবহারকারী আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের কোন পেজে ক্লিক করে বা দেখতে চায়, তখন ওয়ার্ডপ্রেসে একটি লোডিং প্রক্রিয়া শুরু হয়। এই প্রক্রিয়ার সময়, এটি শুধুমাত্র আপনার ওয়েবসাইটে সক্রিয় বা অ্যাক্টিভ থাকা প্লাগইনগুলো লোড করে। কিন্তু ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলো লোড করে না। এগুলো নিস্ক্রিয় অবস্থায় থাকে।

এমনকি আপনার সাইটে যদি কয়েক ডজন নিষ্ক্রিয় প্লাগইনও থাকে, তবুও এটি আপনার সাইটের কার্যকারিতাকে প্রভাবিত করবে না বা এর গতি কমে যাবে না। ওয়ার্ডপ্রেসে এগুলো শুধুমাত্র plugins পেজেই দেখা যায়। আর এটা শুধুমাত্র প্লাগইনের হেডার ফাইলের জন্য দেখায় এবং কিন্তু প্লাগইন নিজেকে লোড করে না।

তাই আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটি যদি ধীর গতিতে লোড হয়, তাহলে ইনঅ্যাক্টিভ বা ডিঅ্যাক্টিভেটেট প্লাগইনগুলো অবশ্যই এর জন্য দায়ী নয়। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের গতি এবং কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করতে লিঙ্কে যেতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস নিষ্ক্রিয় প্লাগইনগুলো কি মুছে ফেলা উচিত?

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইনগুলো সরাসরি মুছে ফেলার পরিবর্তে ডিঅ্যাক্টিভেট করার সুবিধা যুক্ত করেছে কারণ কখনও কখনও আপনি যাতে শুধু সাময়িকভাবে এক বা একাধিক প্লাগইন বন্ধ করে রাখতে পারেন। তবে আপনি যদি ভবিষ্যতে কোন প্লাগইন ব্যবহার করতে চান এবং প্লাগইনটি মুছে ফেললে তার সেটিংসগুলোও মুছে ফেলবে, তাহলে সেটা মুছে ফেলা উচিত হবে না।

অন্যথায়, আপনার ওয়েবসাইটে নিষ্ক্রিয় প্লাগইন রাখার কোন মানেই হয়। বরং এগুলোই কোন সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে… ধরুন, আপনার সাইটে কোন প্লাগইন ইনঅ্যাক্টিভ অবস্থায় আছে। কিন্তু, ওয়ার্ডপ্রেস অন্য সব প্লাগইনগুলোর মত সবসময় এই প্লাগইনটির আপডেট দেখাবে এবং আপডেট করতে বলবে। তাই নিয়মিতভাবে অন্যসব প্লাগইনের মত এই প্লাগইনটি আপডেট করাটা আপনার কাছে বিরক্তিকর মনে হতে পারে।

নিষ্ক্রিয় প্লাগইনগুলো হয়ত ক্ষতিকর নাও হতে পারে, কিন্তু এতে সবসময় এক্সিকিউটেবল কিছু ফাইল থাকে। হ্যাকিংয়ের ক্ষেত্রে, এই ফাইলগুলো সংক্রামিত হতে পারে বা আপনার সাইটে ম্যালওয়ার ইনস্টল করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। ওয়ার্ডপ্রেসের সিকিউরিটির জন্য, আপনি যে প্লাগইনটি ব্যবহার করতে ইচ্ছুক নন, সেটি মুছে ফেলাই সবচেয়ে ভালো।

ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলো ওয়ার্ডপ্রেসকে স্লো বা গতি কমিয়ে দেয় কিনা এবং ইনঅ্যাক্টিভ প্লাগইনগুলো মুছে ফেলা উচিত কিনা সেই বিষয়ে আপনার প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছেন আশা করি।

ওয়ার্ডপ্রেস সংক্রান্ত আরো অনেক তথ্য জানতে টেকপেজবিডি’র সাথেই থাকুন।

0 Comments

Ahmed Imran

There is nothing to say about myself

Reply your comment

Your email address will not be published. Required fields are marked*

19 + fourteen =